দেশে সাম্প্রদায়িক শক্তি নানা ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে

প্রকাশিত: ৮:১৬ পিএম, জানুয়ারী ১১, ২০২১
  • শেয়ার করুন

দেশে সাম্প্রদায়িক শক্তি নানা ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। স্বাধীনতাবিরোধী সাম্প্রদায়িক শক্তিকে প্রতিহত করতে নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে সোমবার (১১ জানুয়ারি) আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় নেতারা এ আহ্বান জানান। দুপুরে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন‌, ‘৫০ বছর আগে বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তার কন্যা শেখ হাসিনা একে একে তা বাস্তবায়ন করেছেন। শেখ হাসিনা আছেন বলেই আজ বাংলাদেশের মানুষ নির্বিঘ্নে ঘুমাতে পারে। এ দেশে আজ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধ বাস্তবায়িত হচ্ছে। স্বাধীনতার পর যে যুক্তরাষ্ট্র বলেছিল বাংলাদেশ একটি তলাবিহীন ঝুড়ি, আজ তারাই বলছে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সম্ভাবনার দেশ। বাংলাদেশ যখন উন্নয়নের মাধ্যমে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, তখন দেশের একটি রাজনৈতিক দল বিএনপি তা দেখতে পায় না। তাদের সময় দেশের সংবিধান, প্রশাসন, নির্বাচন ব্যবস্থা সবকিছুই ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। তাই তারা উন্নয়ন দেখতে পায় না। তাই তারা মনে করে তারা যেভাবে ধ্বংস করেছে দেশের সবকিছুই সেভাবে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। তাদের ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। সব ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’

সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান বলেন, ‘স্বাধীনতার পর এদেশের মানুষ প্রহর গুনছিলেন বঙ্গবন্ধু কবে ফিরে আসবে। তাদের একই কথা ছিল বঙ্গবন্ধু ফিরে না এলে এ স্বাধীনতা মূল্যহীন, এ স্বাধীনতা ব্যর্থ হয়ে যাবে। বঙ্গবন্ধু যখন দেশ পুনর্গঠনে নিজেকে নিয়োগ করেন, তখন ৭৫ সালের ১৫ আগস্ট তাকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। আজ বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমাপ্ত করছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। তবে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রও থেমে নেই।’

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, ‘অনেকেই সেদিন ভেবেছিলেন বঙ্গবন্ধু ফিরে আসবেন না। কিন্তু বঙ্গবন্ধু ফিরে আসার পর তার দূরদর্শিতার কারণে মাত্র তিন মাসের মধ্যে ভারতের সৈন্য প্রত্যাহার হয়। বঙ্গবন্ধু যখন এ দেশ পুনর্গঠনের মাধ্যমে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন তখন স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি তাকে নির্মমভাবে হত্যা করে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে। ’

তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেন, ‘শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র হচ্ছে। আমাদের আজকের শপথ এ ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করবো ৷ পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু হত্যার মূল ষড়যন্ত্রকারী জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচারের ব্যবস্থা করবো। ’

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আফজাল রহমান বাবু, সহ-সভাপতি আমির হোসেন আমির, আব্দুল আলিম বেপারী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক একেএম আজিম প্রমুখ।