সর্বশেষ সংবাদ

আফগানিস্তানে বিপুল পরিমাণ সৈন্য পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত: ১১:৩৩ এএম, আগস্ট ১৩, ২০২১
  • শেয়ার করুন

এবার আফগানিস্তানে নতুন করে তিন হাজার সৈন্য পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এমন এক সময় এই বিপুল পরিমাণ সৈন্য পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, যখন আফগানিস্তানের ৩৪টি প্রদেশের মধ্যে অন্তত ১১টি দখল করে নিয়েছে তালেবানরা। তালেবানরা পশ্চিমাঞ্চলীয় হেরাত এবং কৌশলগত গজনি শহর দখল করার কয়েক ঘণ্টা পর যুক্তরাষ্ট্র এমন ঘোষণা দিলো।

বার্তা সংস্থা এপি জানিয়েছে, এই তিন হাজার সৈন্য কাবুল এয়ারপোর্টে পাঠানো হবে যারা দেশটিতে মার্কিন দূতাবাসের সদস্যদের সরিয়ে আনতে সাহায্য করবে। গত মে মাস থেকে দ্রুত গতিতে আফগানিস্তানের বিভিন্ন অঞ্চল দখল করে নিচ্ছে তালেবানরা। সবশেষ বৃহস্পতিবার আফগানিস্তানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর কান্দাহার দখলের ঘোষণা দিয়েছে তারা।

তবে এত কিছুর পরও মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার জানায়, কাবুলে মার্কিন দূতাবাসের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের এমন নাটকীয় সিদ্ধান্তের পর অনেকেই অবাক হলেও মনে হচ্ছে, আফগান সরকার তালেবানদের অগ্রযাত্রা রুখতে পারবে বলেই বিশ্বাস করে ওয়াশিংটন।

এদিকে তালেবানদের অগ্রাভিযানের মুখে আফগানিস্তানের বড় বড় শহরগুলোর পতন ঘটছে। এর ফলে ক্রমেই বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে রাজধানী কাবুল। এর আগে মার্কিন এক গোয়েন্দা রিপোর্টে বলা হয়, মাত্র ৯০ দিনের মধ্যে পতন ঘটবে কাবুলের। আর ৩০ দিনের মধ্যে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে শহরটি।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেছেন, আমরা তাদের পরিত্যক্ত করছি না। আবার আমরা তাদের সরিয়েও আনবো না। এটা পুরোপুরি প্রত্যাহার নয়। বরং আমরা সেখানে আমাদের বেসামরিক নাগরিকদের সংখ্যা কমিয়ে আনবো। তিনি বলেন, আমাদের দীর্ঘ অংশীদারিত্বের জন্য আফগান জনগণের জন্য এটা একটা বার্তা।

গতকাল বৃহস্পতিবার আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণির সঙ্গে ফোনালাপ করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। এসময় তালেবান কর্মকর্তাদের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, মার্কিন সেনাবাহিনীর সাময়িক অবস্থানকালে মার্কিনিরা হামলার শিকার হলে পাল্টা জবাব দেবে ওয়াশিংটন।